| | সোমবার, ২৩শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৩শে রজব, ১৪৪২ হিজরি |

​ভোটের উৎসবে নৌকা, শঙ্কায় ধান

প্রকাশিতঃ ৭:০৩ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ১৫, ২০২১

somoy news

নিউজ ডেস্ক :রাত পোহালেই গাজীপুরের শ্রীপুর পৌর নির্বাচন। রাজনৈতিক উত্তাপ ছড়িয়ে ইতোমধ্যে আটঘাট বেঁধে মাঠে নেমেছে প্রধান দুই দল। চলছে ঘরোয়া বৈঠক, করা হয়েছে কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি। প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন মেয়র, কাউন্সিলর প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা। সব মিলিয়ে সরগরম শ্রীপুরের তৃণমূলের রাজনীতি। নির্বাচনের শেষের দিকে এসে উৎসবের আমেজ বিরাজমান নৌকায়। আর সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন ধানের শীষের প্রার্থী।

কার্যালয়ে হামলা-ভাঙচুর, নেতাকর্মীদের উপর দফায় দফায় হামলা, পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা, ইভিএম নিয়ে প্রশ্নসহ নানা অভিযোগ আনা হচ্ছে বিএনপির পক্ষ থেকে। ইতোমধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় প্রার্থী বাদী হয়ে আ’লীগের ২৩ জনের নাম উল্লেখসহ ২৫০ জনকে অভিযুক্ত করে থানায় মামলাও করেছেন।

অন্যদিকে,নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতেই বিএনপি অপতৎপরতা চালাচ্ছে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ। পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরে আলম মোল্লা বাদী হয়ে বিএনপির ১১২ জনের নাম উল্লেখসহ ২৫০ জনের নামে মামলা দায়ের করেছেন।

এদিকে, শ্রীপুর পৌর মুক্ত মঞ্চে বিএনপির সমাবেশ স্থলে ছাত্রলীগের সভা ডাকায় নিষেধাজ্ঞা জারি করে প্রশাসন। তবে, বৃহস্পতিবার বিকেলে সভা করেছে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী। সব মিলিয়ে পৌর নির্বাচনে এখন থমথমে পরিবেশ বিরাজমান।

নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ের তথ্যমতে, প্রায় ৪৭ বর্গকিলোমিটার আয়তনের পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার ৬৭ হাজার ৯২৭জন। আগামী ১৬ জানুয়ারি ২৬টি ভোট কেন্দ্রের ১৯০ টি বুথে ইভিএম ( ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন) পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে পুরুষ ভোট কেন্দ্র ১০টি, মহিলা ভোট কেন্দ্র ১০ এবং উভয় ভোট কেন্দ্র ৬টি। সকাল ৮ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত একটানা ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ চলবে।

এবারের পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকে বর্তমান মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনিছুর রহমান, বিএনপি ধানের শীষের পৌর বিএনপির সভাপতি অ্যাড. কাজী খানের পাশাপাশি ইসলামি আন্দোলনের মনোনীত মেয়র প্রার্থী হাতপাখা প্রতীকের শামীম আহমেদ মমতাজী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জগ প্রতীক নিয়ে মাঠে রয়েছেন সদ্য প্রয়াত বিএনপি নেতা শহীদুল্লাহ শহিদের বড় ভাই মোঃ শাহ আলম।

ভোটের মাঠে শক্ত অবস্থানে রয়েছে বিএনপি-আ.লীগ। কেউ কাউকে ছাড় দিতে রাজি নয়। চারজন মেয়র পদের পাশাপাশি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৪৯ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১১জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। কাউন্সিলর পদে দলীয় প্রতীক না থাকলেও এদের মধ্যে কোনো কোনো প্রার্থী দলীয় মতাদর্শ নিয়ে আবার কেউ কেউ নিরপেক্ষ ভাবে ভোটের লড়াইয়ে অংশ নিচ্ছেন। তবে,কাউন্সিলরদের অনেকেই আবার প্যানেলে যেতে দৌড়ঝাপ শুরু করেছেন।

বিএনপির প্রার্থী অ্যাড. কাজী খান বলেন, দীর্ঘদিন রাজনৈতিক মাঠে ছিলাম। তাই প্রতিপক্ষ প্রার্থী নিয়ে কোনো ভয় পাচ্ছি না। আমাদের ভয় নির্বাচন ব্যবস্থা নিয়ে। ভোটাররা সঠিকভাবে তাদের ভোট প্রয়োগ করতে পারবেন কিনা সেটাই এখন বড় বিষয়। আবার নতুন করে যুক্ত হয়েছে ইভিএম পদ্ধতি। তারপরও যতই বাঁধা আসুক না কেনো আমি ভোটের শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকতে চাই।

আওয়ামীলীগ নেতারা বলছেন, শ্রীপুরের স্থানীয় রাজনীতিতে মতবিরোধ থাকলেও পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের সেই মতবিরোধ এখন আর নেই। দলের হাই কমান্ড এবং কেন্দ্রের নির্দেশনা মোতাবেক দলীয় প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করার জন্য সবাই একসঙ্গে কাজ করছেন। আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারণার অন্যতম কৌশল হিসেবে বিগত সময়ের উন্নয়নগুলো জনগণের সামনে তুলে ধরছেন। আগামীতে কেমন পৌর শহর উপহার দিতে চান সে বিষয়েও রেখেছেন প্রচারণায়। প্রার্থীর পাশাপাশি ঘোষিত এসব বার্তা নিয়ে ভোটারদের ঘরে ঘরে যাচ্ছেন নেতা-কর্মীরা।

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আনিছুর রহমান জানান, একটি ইউনিয়ন থেকে পৌরসভায় রুপান্তরিত করতে আমার যত পরিশ্রম আমি পৌরবাসীর কল্যাণে উৎসর্গ করলাম। আগামীতে এ পৌরসভার বাকী কাজ করে যেতেই আবারও জনগণের সমর্থন প্রত্যাশা করছি।

পৌর নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা কাজী ইস্তাফিজুল হক আকন্দ যায়যায়দিনকে জানান, দু’একটা বিচ্ছিন্ন ঘটনা নির্বাচনে প্রভাব ফেলবে না। নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপুর্ণ করতে ইতোমধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পূর্ণ করা হয়েছে। এতে সকলের সহযোগীতা কামনা করেন তিনি।

Matched Content

সময় নিউজ ডট নেট এর কোনো সংবাদ,তথ্য,ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares